লালমনিরহাট, ৯ অক্টোবর : লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার দুর্গাপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে একজন নিহত ও নারীসহ চারজন আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে বাংলাদেশের ভেতরে ঢুকে বিএসএফ সদস্যরা গুলি ছুড়লে এ হতাহতের ঘটনা ঘটে।

নিহত রহিম (৩৩) উপজেলার চওড়াটারী গ্রামের কাশেম মিয়ার ছেলে। আহতরা হলেন- একই এলাকার আনছার আলীর ছেলে সাজু (৪৩), গফুর মিয়া ছেলে সুলতান মিয়া (৩৪), আনোয়ারুল ইসলামের ছেলে সুমন (৪১) এবং ইসমাইল মিয়ার স্ত্রী রাবেয়া (৩৫)।

বিজিবি ও স্থানীয় সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার দুর্গাপুর ইউনিয়নের চওড়াটারী গ্রামের কয়েক ব্যক্তির গরু ভারতীয় কাঁটাতারের বেড়া সংলগ্ন জমিতে গলে তা আনতে যান তারা। এসময় ২১ বিএসএফ এর বারথারবাড়ি ক্যাম্পের সদস্যরা সীমান্তের বাংলাদেশের ভেতরে ঢুকে গুলি ছুড়তে থাকে।

বিজিবি জানায়, এসময় গুলিবিদ্ধ হন পাঁচজন। পরে আহতদের লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আহতদের মধ্যে রহিম ও সুলতানের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাদের রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে সেখানে ভোররাতে রহিমের মৃত্যু হয়।

দুর্গাপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সালেকুজ্জামান প্রামানিক বলেন,বিএসএফ কোন কারণ ছাড়াই বৃহস্পতিবার রাতে বাংলাদেশের ভেতরে ঢুকে এলোপাতাড়ি গুলি ছুড়লে পাঁচজন আহত হন।

লালমনিরহাট ১৫ বর্ডার গার্ড (বিজিবি) ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক কর্নেল বজলুর রহমান হায়াতী এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, বাংলাদেশিদের একটি দল ভারত থেকে গরু নিয়ে আসার সময় ২১ বিএসএফ জওয়ানদের একটি দল তাদের পিছু নিয়ে বাংলাদেশে ঢুকে পড়লে এ ঘটনা ঘটে।

তিনি জানান, এ বিষয়ে বিএসএফর কাছে কড়া প্রতিবাদ জানানো হয়েছে। আজ (শুক্রবার) বিকেল ৪টায় দুর্গাপুর সীমান্তে বিজিবি-বিএসএফর মধ্যে পতাকা বৈঠক হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *