স্পোর্টস ডেস্ক, ৮ অক্টোবর : নারী ও শিশু নির্যাতনের মামলায় রিমান্ড শুনানির জন্য ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেনকে আদালতে আনা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম (সিএমএম) আদালতে হাজির করা হয়। মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. নুরু মিয়ার আদালতে তার বিরুদ্ধে পুলিশের রিমান্ড আবেদনে শুনানি হবে।

গত মঙ্গলবার মিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুর রহমান ঢাকার সিএমএম আদালতে এ রিমান্ড আবেদন করেন।

গত সোমবার শাহদাত আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করলে বিচারক আবেদন নাকচ করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে গত ৪ অক্টোবর একই মামলায় শাহাদাতের স্ত্রী নিত্য শাহাদাতের জামিন নাকচ করে আদালত পরবর্তী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি দেয়।

আগের দিন (শনিবার) রাতে রাজধানীর মালিবাগ এলাকায় এক আত্মীয়ের বাসায় আত্মগোপনে থাকা শাহাদাতের স্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গত ৬ সেপ্টেম্বর রাতে রাজধানীর কালশী থেকে শাহাদাতের গৃহকর্মী মাহফুজা আক্তার হ্যাপিকে (১১) গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। তার শরীরের অধিকাংশ স্থানে গুরুতর জখম ও ফুলে যাওয়ার চিহ্ন ছিল। আঘাতের চিহ্ন ছিল দু’চোখেও।

এছাড়া শরীরের বিভিন্ন স্থানে ছ্যাঁকার দাগ পাওয়া যায়। আহত হ্যাপিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে চিকিৎসা দেয়া হয়।

সে সময় পুলিশের কাছে দেয়া জবানবন্দিতে শাহাদাত ও তার স্ত্রীর নির্যাতনের কথা জানায় হ্যাপি। ওই রাতেই মিরপুর মডেল থানায় শাহাদাত দম্পতির বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে মামলা করেন সাংবাদিক খন্দকার মোজাম্মেল হক।

বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকা হ্যাপি গত ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকার সিএমএম আদালতে তার ওপর নির্যাতনের বর্ণনা দেয়।

আদালতে পুলিশের অপরাধ, তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের সহকারী কমিশনার মিরাশ উদ্দিনের ভাষ্য মতে, হ্যাপির জবানবন্দির প্রতিটি লাইনেই শাহদাতের বিরুদ্ধে অভিযোগের বর্ণনা আছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *