ডেস্ক : এখন ট্রান্সজেন্ডার বাবা -মা নতুন কথা নয়।কিন্তু এই ধারার প্রবর্তক কে? যতদূর জানা যাচ্ছে‚ সেই পথ প্রদর্শক হলেন থমাস বেটি। হাওয়াই দ্বীপপুঞ্জে একজন মেয়ে হিসেবে জন্মগ্রহণ করেন ১৯৭৪ সালে। নাম ছিল ট্রেসি। কিন্তু ২০ বছর বয়স থেকেই আস্তে আস্তে পুরুষ হওয়ার দিকে এগোন। আজ‚ তিনি তিন সন্তানের জন্মদাতা। পুরুষ হয়ে স্বাভাবিক প্রসবে জন্ম দিয়েছেন এক মেয়ে এবং দুই ছেলের!

হাওয়াইয়ের ট্রেসির পুরুষ হওয়ার ইচ্ছে ছিল। আবার মা হওয়ার সাধও জেগেছিল। চিকিৎসা প্রক্রিয়ার পরে পুরুষ হলেন বটে। তবে দেহে রেখে দিলেন ভ্যাজাইনা‚ ইউটেরাস এবং মহিলাদের অন্য যৌনাঙ্গ। বাদ দিয়েছিলেন দুটি স্তন। পরিবর্তে‚ দেহে শোভা পেতে লাগল এইট প্যাকস।

নারী থেকে পুরুষে রূপান্তরিত থমাস বিয়ে করেন ন্যান্সিকে। এই ন্যান্সি আবার হিসটেরেকটমি করিয়েছেন। ফলে মা হওয়ার জন্য ডোনারের কাছ থেকে স্পার্ম নিলেন থমাস। আর্টিফিশিয়াল ইনসেমিনেশন করা হয়। এরপর স্বাভাবিকভাবে জন্ম দেন তিন সন্তানের। থমাসের বড় মেয়ে সুজানের বয়স ৭‚ তার ছেলে অস্টিন ৭ বছরের এবং ছোট ছেলে জ্যানসন ৫ বছরের। তিনজনকেই আবার স্তন্যপান করিয়েছেন স্ত্রী ন্যান্সি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *