স্পোর্টস ডেস্ক, ৫ অক্টোবর : গৃহকর্মী মাহফুজা আক্তার হ্যাপি নির্যাতনের মামলায় ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেন আত্মসমর্পণ করে আদালতে জামিন চেয়েছেন।

সোমবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের আদালতে শাহাদাত তার আইনজীবী কাজী নজিবুল্লাহ হিরুর মাধ্যমে জামিন আবেদন করেছেন। কিছুক্ষণের মধ্যে ঢাকা মহানগর হাকিম ইউনুস খানের আদালতে তার জামিন শুনানির কথা রয়েছে।

এর আগে গতকাল শাহাদাতের স্ত্রী জেসমিন জাহান নৃত্যর জামিন ও রিমান্ডের আবেদন নাকচ করে দেন আদালত।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মিরপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শফিকুর রহমান গতকাল শাহাদাতের স্ত্রীকে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম মো. ইউনুস খান তাঁর জামিন ও রিমান্ডের উভয় আবেদন নাকচ করে দেন। তবে নৃত্যকে জেলগেটে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দিয়েছেন আদালত।

এ মামলায় শনিবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর মালিবাগের পাবনা গলির বাড়ি থেকে শাহাদাতের স্ত্রী জেসমিন জাহান নৃত্যকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর আগে গত ২১ সেপ্টেম্বর আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ২২ ধারায় ঘটনার বর্ণনা দিয়ে একটি জবানবন্দি দেয় হ্যাপি।

গত ৬ সেপ্টেম্বর রবিবার সন্ধ্যায় মিরপুরের ১১ নম্বর সেকশনের কালশীর সাংবাদিক প্লটের গেট থেকে মাহফুজা আক্তার হ্যাপি নামের ১১ বছর বয়সী এক মেয়েশিশুকে উদ্ধার করে স্থানীয় লোকজন। শিশুটির গায়ে একাধিক আঘাতের চিহ্ন ও চোখ ফোলা ছিল।

শিশুটির অভিযোগ, সে জাতীয় দলের ক্রিকেটার শাহাদাত হোসেনের বাসায় গৃহকর্মী ছিল। শাহাদাত ও তার পরিবারের লোকজন তার ওপর নির্যাতন করেছে। হ্যাপি আরো জানায়, নির্যাতনের কারণে সে ওই বাসা থেকে পালিয়েছে।

৬ সেপ্টেম্বর রাতেই স্থানীয় বাসিন্দা ও সাংবাদিক খন্দকার মোজাম্মেল হক নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে শাহাদাত হোসেন ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা করেন।

এর আগে একই দিন রাজধানীর মিরপুর মডেল থানায় ক্রিকেটার শাহাদাত তার বাসার গৃহকর্মী মাহফুজা আক্তার হ্যাপিকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না মর্মে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।

এদিকে, উদ্ধারের পর পুলিশ হ্যাপিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করে। ওই ঘটনার পর থেকে শাহাদাত ও তাঁর স্ত্রী পলাতক ছিলেন। শিশু গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগ ফয়সালা না হওয়া পর্যন্ত শাহাদাতকে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে সাময়িক বহিষ্কার করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *