Search
Tuesday 17 October 2017
  • :
  • :

এমপি পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে মুকুল বললেন ‘চাকর নই’, পাল্টা জবাব পার্থের

এমপি পদ থেকে ইস্তফা দিয়ে মুকুল বললেন ‘চাকর নই’, পাল্টা জবাব পার্থের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ১২ অক্টোবর : পশ্চিমবঙ্গের সাবেক তৃণমূল নেতা মুকুল রায় আজ এমপি পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন। রাজ্যে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস থেকে তিনি সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভার সদস্য ছিলেন। গতকাল বুধবার তিনি রাজ্যসভার চেয়ারম্যান বেঙ্কইয়া নাইডুর হাতে ইস্তফাপত্র তুলে দেন।

মুকুল রায় আজ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্ককে ক্ষোভ ব্যক্ত করে বলেন, ‘মমতাকে নেত্রী মনে করি। কমরেড হতে পারি, কিন্তু চাকর নই।’

মুকুল রায় বলেন, ‘কংগ্রেসের বিরোধিতা করেই তৃণমূলের জন্ম হয়েছিল। তখন আমরা বিজেপির হাত ধরেছিলাম, এনডিএ শরিক হয়েছিলাম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই মন্ত্রিসভায় মন্ত্রী হয়েছিলেন। তখন বিজেপি সাম্প্রদায়িক ছিল না। আজ বিজেপি হঠাৎ সাম্প্রদায়িক হয়ে গেল কেন?’

তিনি বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশেই ২০০৩ সালে আমরা আরএসএস-এর সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলাম।’

মুকুল রায় বিজেপিকে সাম্প্রদায়িক শক্তি বলে মনে করেন না বলে মন্তব্য করেন।

তিনি আজ তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না করে কটাক্ষে বলেন, ‘প্রথমে বলা হল, অটলবিহারী বাজপেয়ী ভালো, কিন্তু এল কে আদবানী সাম্প্রদায়িক। কিন্তু কিছুদিন পরেই বলা হল, আদবানী ভালো, মোদি সাম্প্রদায়িক। কিছুদিন পরেই আবার বলা হল, মোদি ভালো, অমিত শাহ সাম্প্রদায়িক!’

গত ২৫ সেপ্টেম্বর মুকুল রায় দল ছাড়ার ঘোষণা দেন। ওইদিনই তাকে দল থেকে ৬ বছরের জন্য বহিষ্কার করা হয়। পুজোর পরে এমপি পদ থেকে ইস্তফা দেবেন বলে ঘোষণা দিয়েছিলেন মুকুল বাবু।

আজ মুকুল রায়ের পাল্টা জবাব দিতে মাঠে নেমে তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় মুকুলের তীব্র সমালোচনা ও কটাক্ষ করেন।

পার্থ বাবু বলেন, ‘মুকুলের কথা গুরুত্বহীন। কাঁচরাপাড়ায় কাঁচরাবাবু। উনি দলের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে চেয়েছিলেন। বিশ্বাসহীনতার পরিচয় দিয়েছেন। মুকুল রায়ের রাজনৈতিক পরিচয় নিয়ে প্রশ্ন তুলে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলে, মুকুল রায়কে আগে কে চিনত? তার উল্টোপাল্টা কথার কোনো মূল্য নেই।’

তৃণমূল সম্পর্কে মুকুল রায় যেসব তথ্য তুলে ধরেছেন তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন বলেও পার্থ চট্টোপাধ্যায় মন্তব্য করেন। -পার্সটুডে