ঢাকা, ২১ সেপ্টেম্বর : মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষা ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে এমন অভিযোগ এনে এ পরীক্ষা বাতিল চেয়ে করা রিট খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।
সোমবার বিচারপতি নাঈমা হায়দার ও বিচারপতি জে এন দেব চৌধুরীর সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

এর আগে রবিবার সকালে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় রিট আবেদনটি করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট ই‌উনুছ আলী আকন্দ।

রিটে স্বরাষ্ট্র সচিব, আইন সচিব, স্বাস্থ্য সচিব, মন্ত্রিপরিষদ সচিব, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক ও পরিচালক, পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি), র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক, দুর্নীতি দমন কমশন (দুদক), ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার ও শেরেবাংলা নগর থানার ওসিসহ সংশ্লিষ্ট ১১ জনকে বিবাদী করা হয়।

আইনজীবী ইউনুছ আলী আকন্দ জানান, শনিবার দুপুরে কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, আইন সচিব ও স্বাস্থ্য সচিব বরাবরে ১৮ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত ওই পরীক্ষা ২৪ ঘণ্টার মধ্যে বাতিলের জন্য লিগ্যাল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আইনি নোটিশে প্রশ্নপত্র ফাঁসের অভিযোগ তদন্তে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়ে পরবর্তীতে নতুন করে ভর্তি পরীক্ষা নিতে বলা হয়েছে।

তার দাবি, ফাঁস হওয়া প্রশ্নপত্রের সঙ্গে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্রের মিল পাওয়া গেছে। নোটিশ অনুযায়ী ব্যবস্থা না নিলে হাইকোর্টে রিট আবেদন করা হবে বলেও জানান আইনজীবী ইউনুছ। পরে নোটিশ অনুযায়ী ব্যবস্থা না নেয়ায় তিনি রিট আবেদন করেছিলেন।

এর আগে প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ এনে শুক্রবার অনুষ্ঠিত মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করে আবার পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে সংবাদ সম্মেলন, মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল করে পরীক্ষায় অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা। শনিবার ঢাকা, বরিশাল, সিলেট ও ময়মনসিংহে এসব কর্মসূচি পালন করেন তারা। এরমধ্যেই গতকাল রোববার মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *