Search
Thursday 7 July 2022
  • :
  • :

মিনায় দুর্ঘটনার জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষকে দুষলেন হাজিরা

মিনায় দুর্ঘটনার জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষকে দুষলেন হাজিরা

মক্কা, ২৫ সেপ্টেম্বর : মিনায় পদদলিত হয়ে সাত শতাধিক হাজির মৃত্যুর জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষকেই দায়ী করছেন বেঁচে যাওয়া হাজিরা। তারা অব্যবস্থাপনা ও নিরাপত্তা বাহিনীর অনভিজ্ঞতার অভিযোগ এনেছেন।

সৌদি আরবের মিনায় পবিত্র হজ পালনকালে বৃহস্পতিবার পদদলিত হয়ে কমপক্ষে ৭১৭ জন হাজির মৃত্যু হয়। আহত হন আট শতাধিক।

জামারায় যাওয়ার পথেই ২০৪ ও ২২৩ নম্বর সড়কের সংযোগস্থলে স্থানীয় সময় সকাল ৯টার দিকে ভিড়ের চাপে এ পদদলনের ঘটনা ঘটে।

বাংলাদেশী এক হাজি বলেন,  এ বছর আমার মনে হয়েছে, সৌদি সরকার এখন আর আগের মত হাজিদের দিকে খেয়াল করছে না।

তবে তিনি বলেন, আফ্রিকা থেকে আসা হাজিদের একটি দল আগে বাড়ার জন্য গায়ের জোর খাটানোর কারণেই মর্মান্তিক এ ঘটনার সূত্রপাত হয়।

ভয়াবহ ওই পরিস্থিতির হাত থেকে বেঁচে যাওয়া লিবিয়ার আহমেদ আবু বকর বলেন, প্রচণ্ড ভিড় ছিল। পুলিশ একটি ছাড়া হাজি ক্যাম্পের সব প্রবেশ ও নির্গমন ফটক বন্ধ করে দিয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, সেখানে থাকা পুলিশদের কর্মকাণ্ড দেখে বোঝা গেছে তারা কতটা অনভিজ্ঞ। তারা মিনাকে ঘিরে থাকা রাস্তাঘাট ও এলাকাগুলো পর্যন্ত চেনে না।

বেঁচে যাওয়া এক মিসরীয় বলেন, হাজিদের কোনো দোষ ছিল না। সৌদি আরব হজের জন্য প্রচুর খরচ করে কিন্তু এখানে কোনো সংগঠন নেই।

তিনি বলেন, মিনায় হাজিদের যাওয়ার জন্য একটি রাস্তা ও ফিরে আসার জন্য একটি রাস্তা রাখতে পারত।

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে সৌদি আরবের স্বাস্থ্যমন্ত্রী খালেদ আল-ফালিহ বলেছেন, হাজিরা দিকচিহ্ন সঠিকভাবে অনুসরণ না করায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। হুড়োহুড়ির জন্য ‘আফ্রিকান নাগরিকসহ হাজিদের একটি দল’কে দায়ী করেন তিনি।




Leave a Reply

Your email address will not be published.