Search
Tuesday 18 December 2018
  • :
  • :

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ক্ষতি করতে পারছে না তুরস্কের

মার্কিন নিষেধাজ্ঞা ক্ষতি করতে পারছে না তুরস্কের

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ৬ অক্টোবর : মার্কিন খ্রিস্টান ধর্মযাজক অ্যান্ড্রু ব্রানসনকে মুক্তি দেয়া বা না দেয়া নিয়ে সৃষ্ট জটিলতায় তুরস্কের উপর অর্থনৈকতক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে বসেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। বিশেষ করে তুরস্কের স্টিল ও ইস্পাত শিল্পকে টার্গেট করে ওয়াশিংটন এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলেও তা আসলে কতটা কার্যকর হতে পেরেছে?

বিশ্লেষকরা বলছেন, মার্কিন নিষেধাজ্ঞা তুরস্কের স্টিল ও ইস্পাত শিল্প তথা তুরস্কের বাণিজ্যে কোনো প্রভাবই ফেলতে পারছে না। নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও স্টিল রফতানিতে তুরস্কের কোম্পানিগুলো চলতি বছরের নয় মাস শেষে ইতোমধ্যেই ১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে গেছে। দীর্ঘ ছয় বছর পর আবারো তুরস্কের স্টিল রফতানি ১১ বিলিয়ন মাকিন ডলার অতিক্রম করলো।

২০১৮ সালের মার্চ মাস থেকে চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে পাল্টাপাল্টি শুল্কারোপের মাধ্যমে চলা বাণিজ্য যুদ্ধ এখন পর্যন্ত চলতি বছরের সবচেয়ে আলোচিত বিষয়। তবে এর পরে তুরস্ক ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাণিজ্য যুদ্ধ নতুন রূপ নিয়েছে। মাবর্কন যুক্তরাষ্ট্রে তুরস্কের স্টিল রফতানি বন্ধ হলেও ইউরোপে সেটা অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে।

গত বকছরের নয় মাসের তুলনায় বর্তমান বছরের প্রথম নয় মাসে তুরস্কের স্টিল রফতানি বৃদ্ধি পেয়েছে ২৫ দশমিক ৪ শতাংশ। ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত তুরস্ক ৮.১৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের স্টিল রফতানি করে। ২০১৮ সালে এরই মধ্যে এর পরিমান ১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে গেছে। এর আগে সর্বশেষ ২০১২ সালে বছরের প্রথম নয় মাসে তুরস্কের স্টিল রফতানি ১১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ছাড়িয়ে গিয়েছিল।

অন্যদিকে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় একক বৃহৎ বাজার হিসেবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তুরস্কের স্টিল রফতানি হ্রাস পেয়েছে। অন্যান্য বছরের তুলনায় যুক্তরাষ্ট্রে তুর্কি স্টিলের রফতানি কমেছে প্রায় ২৭ দশমিক এক শতাংশ।

এই সময়ে ইউরোপের দেশ ইতালিতে তুরস্কের স্টিল রফতানি প্রায় ৪৪৪.২৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বৃদ্ধি পেয়েছে। বেলজিয়াম ও স্পেন, দুই দেশেই ২৪৮.৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার করে বৃদ্ধি পেয়েছে। এতেই বোঝা যাচ্ছে যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তুর্কি স্টিল আমদানি বন্ধ করে দিলেও ইউরোপীয়ান দেশগুলো তুরস্কের এই ঘাটতির সিংহভাগ পূরণ করে দিয়েছে।

তুরস্কের স্টিল এক্সপোর্টারস অ্যাসোসিয়েশনের (সিআইবি) বোর্ড অব ডিরেক্টরস’র চেয়ারম্যান আদনান আরসালান বলেন, তুরস্কের স্টিল শিল্পের সফলতার পিছনে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারণ হচ্ছে আমাদের স্টিলের মান, সঠিক ও মানসম্মত উৎপাদন, প্রতিযোগিতামূলক দাম ও নির্দিষ্ট সময়ের আগেই পণ্য প্রস্তুত করে রফতানির জন্য সরবরাহ করা।