Search
Wednesday 23 May 2018
  • :
  • :

ভুল সংবাদে বিব্রত অনন্ত জলিল

ভুল সংবাদে বিব্রত অনন্ত জলিল

বিনোদন ডেস্ক, ১০ মে : সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত তিতুমীর কলেজের ছাত্র রাজীব হোসেনের ছোট দুই ভাইয়ের পড়ালেখা ও থাকা-খাওয়ার দায়িত্ব নিয়েছেন চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল। এমন খবর দেশের প্রায় সব গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়েছে।

কিন্তু সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে রাজিবের দুই ভাইকে ডেকে এনে ১০ হাজার টাকা দিয়ে বিদায় করে দিয়েছেন অনন্ত জলিল। এবার বিষয়টি নিয়ে মুখ খুললেন নায়ক অনন্ত।

নিজের ফেসবুক এক স্ট্যাটাসে অনন্ত জলিল তার অবস্থান ব্যাখ্যা করে লিখেন, ‘এই বিষয়ে আমি একটু মনো-কষ্টে ভুগছি। বিষয়টি হলো ভুল সংবাদ প্রচারের কারণে। আমি রাজিবের দুই ভাইয়ের যাবতীয় খরচ বহন করতে উদ্যোগ নিয়েছি। আর তাদের যাবতীয় খোঁজ-খবর নেয়ার জন্য একজন মুফতিকে দায়িত্ব দিয়েছি। আমি চেয়েছিলাম সাভারে তাদের জন্য একটি ভালো বসবাসের ব্যবস্থা করে মাদরাসায় পড়ালেখা করার সুযোগ করে দিতে। কিন্তু রাজিবের দুই ভাইয়ের অভিভাবক যেহেতু খালা ও মামা। তাদের মতামতের ভিত্তিতে আমি আগের মাদরাসার পড়ালেখাসহ যাবতীয় খরচ প্রদানের জন্য উদ্যোগী হই। ’

তিনি আরও বলেন, ‘একইসাথে সেই মাদ্রাসার প্রিন্সিপালকে বলেছি, তাদের এতিম কোঠায় না দিয়ে সাধারণ ছাত্র হিসেবেই যাবতীয় ব্যবস্থা নিতে। তাদের যে কোনো খরচের প্রয়োজন হলে যেনো আমাকে জানানো হয়। আমি ইতোমধ্যে তাদের খরচ বহন করাও শুরু করেছি। এই খরচ আমি প্রতিনিয়ত তাদের দিয়ে যাবো। কিন্তু কিছু সংবাদ মাধ্যম কান-কথার ভিত্তিতে ভুল তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে। যা আমাকে বেশ বিব্রত করেছে এবং রাজিবের দুই ভাইয়ের ভবিষ্যৎ এতে হুমকিতে পড়তে পারে।’

সবার কাছে অনুরোধ জানিয়ে অনন্ত জলিল বলেন, ‘যারা রাজিবের ছোট দুই ভাইয়ের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ দেখতে চান, তারা এই ভুল সংবাদ পরিবেশন হতে বিরত থাকবেন। রাজিবের মামা, খালার অসম্মান হোক এমন নিউজ ও কমেন্টস না করার জন্য অনুরোধ করছি। আপনাদের প্রতি আমার বিশ্বাস তাদের সর্বোচ্চ সহযোগিতায় এগিয়ে আসবেন। আমরা রাজিবের দায়িত্ব পালন করে তার দুই ভাইকে মানুষের মতো মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার চেষ্টা করবো, ইনশাআল্লাহ্।’

অন্য কেউ যদি রাজিবের দুই ভাইকে সহযোগিতা করতে চান তাদেরকে পাশে থাকার আহ্বান জানিয়ে অনন্ত বলেন, ‘আমি রাজিবের দুই ভাইয়ের যাবতীয় খরচ বহন করছি এবং করবো। আপনারও যদি কেউ তাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের জন্য সহযোগিতা করতে চান তাহলে এগিয়ে আসতে পারেন। ’