স্পোর্টস ডেস্ক, ৯ অক্টোবর : অনেকগুলো সুযোগ নষ্ট করেছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। তার মাশুল সুদে আসলে দিতে হয়েছে। ডাবলিনে তাদের কিংকর্তব্যবিমুঢ় করে দিয়েছে আয়ারল্যান্ড। বিখ্যাত এক জয় তুলে নিয়ে আগামী বছর ফ্রান্সে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপে খেলার আশা বাঁচিয়ে রেখেছে আইরিশরা। ইউরো ২০১৬ এর বাছাই পর্বের ম্যাচে দ্বিতীয়ার্ধে বদলী খেলোয়াড় শেন লংয়ের গোলে ১-০ তে জিতেছে আয়ারল্যান্ড।

আয়ারল্যান্ডের বদলী গোলকিপার ড্যারেন র‌্যানডল্ফ একটি লম্বা বল পাঠিয়েছিলেন। সেটি ধরে ফেলেন লং। এরপর তিনি এগিয়ে গিয়ে ভেঙ্গেছেন জার্মানির ডিফেন্স। তারপর প্রবল শটে হার মানিয়েছেন গোলকিপার ম্যানুয়েল ন্যুয়ারকে। প্রথমার্ধে মেসুত ওজিলের গোল বাতিল হওয়ায় লিড নিতে পারেনি জার্মানি। ম্যাচে অনেকগুলো সুযোগ মিস করেছে। ফিনিশিংয়ের অভাব খুব চোখে লেগেছে।

এই হারের ফলে শেষ ম্যাচটা জার্মানির জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ওই ম্যাচে জর্জিয়ার সাথে অন্তত ড্র করতে হবে তাদের। তাহলেই ২০১৬ ইউরোতে খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারবে। গ্রুপের তৃতীয় স্থান এখন আয়ারল্যান্ডের জন্য পাকা। পোল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ম্যাচে জিততে পারলে বা ড্র করলেই দ্বিতীয় স্থান পেয়ে স্বয়ংক্রীয়ভাবে ইউরোতে খেলার যোগ্যতা পাবে।
খেলার শুরুটা কিন্তু ছিল জার্মানির। টনি ক্রুসের কর্নারে মাথা ছোঁয়াতে পারলেন না বলে গোল বঞ্চিত হলেন জেরোম বোয়াটেং। মারিও গোজে এরপর চমৎকারভাবে আইরিশদের ডিফেন্স ভাঙ্গেন। কিন্তু তার কাছ থেকে বল পাওয়ার পর ইলকে গানডোগানের চেষ্টা রুখে দিয়েছেন ডিফেন্ডার জন ও’শিয়া।

একটু একটু করে ম্যাচের নিয়ন্ত্রন জার্মানির কাছে চলে আসে। কিন্তু অফ সাইডের কারণে তাদের একটি গোল বাতিল হয়। থমাস মুলারের ক্রস থেকে গোল করে উৎসবে মেতেছিলেন ওজিল। কিন্তু সহকারী রেফারির পতাকা তাকে হতাশ করেছে। বিরতির আগে আরেকবার মুলারের কাছ থেকে বল পেয়ে ওজিল মিস করেছেন।

গোজের ইনজুরির কারণে মাঠে নামেন আন্দ্রে শুরলে। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে তার শট বারের ওপর দিয়ে চলে যায়।। এভাবেই সুযোগ নষ্ট করতে থাকে জার্মানি। আয়ারল্যান্ড এরপর হুমকি দিয়ে যায়। ড্যারিল মারফির একটি শট গোলবারে হাওয়া দিয়ে যায়। এরপরই আসে স্মরণীয় মুহূর্ত। র‌্যানডল্ফের লম্বা শটে পাওয়া বলকে লং গোলে রূপ দিয়ে স্বাগতিক সমর্থকদের উৎসববে মাতিয়ে তোলেন।

এরপর মুলাররে উড়িয়ে দেয়া বলকে নষ্ট করেছেন হামেলস। তবে মুলারই একটি স্বর্ণ সুযোগ নষ্ট করেছেন। জোনাস হেক্টরের ক্রস তাকে খুঁজে পেয়েছিল। ১২ গজ দূর থেকেও গোল করতে পারেন নি মুলার। এভাবে সুযোগ নষ্ট করলে ভাগ্যক্রমে জেতে দল। কিন্তু ভাগ্য এদিন ছিল আয়ারল্যান্ডের পক্ষে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *