Search
Tuesday 24 May 2022
  • :
  • :

বাজারে কাগুজে ডলার নোটের তীব্র সংকট

বাজারে কাগুজে ডলার নোটের তীব্র সংকট

অর্থনৈতিক ডেস্ক, ১৫ অক্টোবর : কয়েক দিন পর পর রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের এখন বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ২ হাজার ৬০০ কোটি ডলারেরও বেশি। হিসাবে রেকর্ড পরিমাণ ডলার থাকলেও বাজারে কাগুজে ডলার নোটের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। সংকট কাটাতে ইতোমধ্যে ব্যাংকগুলোকে তাদের চাহিদামাফিক নোট আমদানির অনুমতিও দেওয়া হয়েছে। এই ক্যাশ ডলারের আমদানিতে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডকে (এনবিআর) অনুরোধ করে চিঠি দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র নির্বাহী পরিচালক মাহফুজুর রহমান এ প্রতিবেদককেকে বলেন, প্রতি বছরই হজ-পরবর্তী সময়ে ক্যাশ ডলারের সংকট দেখা দেয়। এবার হাজিদের নেওয়ার পরিমাণ ৩ হাজার বাড়িয়ে ৫ হাজার ডলার করা হয়। এছাড়া ট্রাভেল কোটা বাড়িয়ে ১০ হাজার ডলার করা হয়েছে। ফলে ব্যাংকগুলোর ক্যাশ ডলার সংকট পড়েছে। এখন যারা বিদেশে যেতে চান তারা চাহিদা মতো ডলার পাবেন না। তিনি বলেন, সংকট কাটাতে ব্যাংকগুলোকে চাহিদামতো ডলার আমদানির অনুমতি দেওয়া হয়েছে। যেহেতু এটি মুদ্রার নোট। তাই আমদানিতে এনবিআর যেন শুল্ক না কাটে এজন্য তাদের চিঠি দেওয়া হয়েছে। এ বছর ১ লাখ ৬ হাজার ৫৫০ জন হাজি সৌদি আরব যান। তবে তাদের বেশির ভাগই সৌদি রিয়াল নিয়ে গেছেন।

এদিকে শিক্ষা, চিকিৎসা, ব্যবসাসহ নানা কাজে বিদেশগামী মানুষের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। সেই সঙ্গে বাড়ছে বৈদেশিক মুদ্রা, বিশেষ করে ডলারের চাহিদা। কিন্তু ডলারের পরিমাণ কমে যাওয়ায় এই চাহিদা মেটাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে ব্যাংকগুলোকে। বাংলাদেশ ব্যাংকের ভল্টে থাকা ডলার দিয়েও সেই চাহিদা মেটানো যাচ্ছে না। এ অবস্থায় জরুরিভিত্তিতে ডলার নোট আমদানির সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পর্ষদ। সম্প্রতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে পাঠানো এক চিঠিতে এ জন্য শুল্ক আরোপ না করার অনুরোধ জানানো হয়েছে। ওই চিঠিতে বলা হয়েছে, দেশের বাজারে নগদ  বৈদেশিক মুদ্রার যোগান অনেক কমে গেছে। তাই বাড়ছে ডলারের দাম।

কেন্দ্রীয় ব্যাংক এর আগেও ডলার আমদানির উদ্যোগ নেয়। বিদেশি একটি ব্যাংক আমদানি প্রক্রিয়া প্রায় চূড়ান্ত করেও অতি উচ্চ শুল্কের কারণে পিছু হটে। তারপর থেকে আর কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। এ কারণেই এই সংকট সৃষ্টি হয়েছে।

এক বেসরকারি ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট এক কর্মকর্তা জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমদানি বন্ধ থাকার পাশাপাশি হুন্ডি বাজারে উচ্চ মূল্য, ব্যাংকগুলোর সমন্বয়হীন দর নির্ধারণ ডলার সংকট আরও ঘনীভূত করেছে। ডলারের সংকট কাটাতে এবং বাজার স্থিতিশীল রাখতে এখন শুল্কমুক্ত আমদানি সুবিধার বিকল্প নেই।




Leave a Reply

Your email address will not be published.