Search
Tuesday 24 May 2022
  • :
  • :

পাকিস্তানের নতুন ইমরান খান!

পাকিস্তানের নতুন ইমরান খান!

স্পোর্টস ডেস্ক, ২০ সেপ্টেম্বর : সাতাশ বছরের এক তরুণকে নিয়ে বেশ সরগরম পাকিস্তানী মিডিয়া। তরুণের নাম এমন এক কিংবদন্তির নামে, যিনি বর্তমানে ক্রিকেটের ধারেকাছেই নেই, ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন রাজনীতিতে। তবে যখন তিনি ক্রিকেটে ছিলেন তখন দাপটের সঙ্গেই মঞ্চ মাতিয়েছেন। পাকিস্তানের সীমা পেরিয়ে বিশ্ব ক্রিকেটেও নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন কিংবদন্তিদের কাতারে। পাকিস্তানকে উপহার দিয়েছেন বিশ্বকাপ ক্রিকেটের শিরোপা। সেই কিংবদন্তি ইমরান খানের নামেই নাম সাতাশ বয়সী তরুণের।

শুধু পরিচয় নির্দিষ্ট করার সুবিধার্থে তার নামের পিছনে জুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে ‘জুনিয়র’ শব্দটি; ইমরান খান জুনিয়র। সম্প্রতি পাকিস্তানের ঘরোয়া টোয়েন্টি২০ ক্রিকেটে বল হাতে দুর্দান্ত পারফরম্যান্সের কারণেই আলোচনায় উঠে এসেছেন এই তরুণ। যিনি অপেক্ষায় রয়েছেন পাকিস্তানের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেকের ।

পাকিস্তানের ঘরোয়া ক্রিকেটে এই মুহূর্তে হাফ ডজনেরও বেশি ‘ইমরান খান’ রয়েছে। তবে সোয়াতের তরুণ পেসার ইমরান খানই ছাড়িয়ে গেছেন অন্যদের। পাকিস্তানী মিডিয়াগুলো তাকে বলতে শুরু করেছে পাকিস্তানের নতুন ইমরান খান।

ইমরানের মতো তেমন সুদর্শন নন ইমরান খান জুনিয়র। বোলিং অ্যাকশনও ইমরান খান সিনিয়রের মতো ততটা ভয়ঙ্কর নয়। আর সিনিয়রের মতো সফল অলরাউন্ডারও নন তিনি। বরং পাকিস্তানের বর্তমান পেসার ওয়াহাব রিয়াজের বোলিং অ্যাকশনের সঙ্গেই মিল বেশি তার। বলের গতি মধ্যম মানের। এরপরও ইমরান খান জুনিয়র প্রশংসায় ভাসছেন তা উইকেট শিকার করার ক্ষমতার কারণে।

সদ্যই সমাপ্ত পাকিস্তানের জাতীয় টোয়েন্টি২০ ক্রিকেটের আসরে পেশওয়ারকে টানা দ্বিতীয় শিরোপা জিতিয়েছেন ইমরান খান জুনিয়র। আগের আসরেও দলের শিরোপা জয়ে মুখ্য ভূমিকা তার। এবারের আসরে দারুণ এক হ্যাটট্রিকও করেছেন তিনি। মাত্র ১৬টি টোয়েন্টি২০ ম্যাচ খেলে নিজের ঝুলিতে ইমরান জুনিয়র ভরেছেন ৩৪ উইকেট। পুরস্কার হিসেবে পাকিস্তানের আসন্ন জিম্বাবুয়ে সিরিজের জন্য টোয়েন্টি২০ স্কোয়াডে জায়গা মিলেছে এই তরুণের। তবে কেবল টোয়েন্টি২০ নয়, বিশ্ব ক্রিকেটের সব ফরম্যাটেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চান ইমরান জুনিয়র।

পাকিস্তানের সোয়াত ভ্যালি হচ্ছে সেই জায়গা, যেখানে গত কয়েক বছর ধরেই তালেবানরা ক্ষমতা দখল করে রেখেছে। এটা নোবেলজয়ী ‘মালালা ইউসুফজাই’র শহর বলেই বেশি পরিচিত বর্তমানে। তবে অচিরেই হয়তো, ইমরান জুনিয়রের জন্যও নতুন পরিচয়ে পরিচিতি হবে সোয়াত ভ্যালি। কেননা, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে যেদিন তার অভিষেক হবে, সেদিনই ইমরান জুনিয়র হবেন সোয়াত ভ্যালির প্রথম প্রতিনিধি যিনি পাকিস্তান জাতীয় দলের হয়ে মাঠে নেমেছেন। পাকিস্তানের এই অঞ্চলটিতে ভলিবল ও ফুটবলই বেশি জনপ্রিয়। যে কারণ এখানে তেমন করে ক্রিকেট তারকার জন্ম হয়নি কখনোই।

ইমরান খানের নামে নাম বলে বাড়তি একটা প্রেরণা পান ইমরান খান জুনিয়র। সেই সঙ্গে মানসিক শক্তিটাও অনেক বেশি তার। ইমরান জুনিয়রের মতে, ‘ক্রিকেটে খেলতে চাইলে মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে হয়। আর তা যদি থাকে তাহলে পৃথিবীর যে কোনো স্থানেই ক্রিকেট খেলা সম্ভব। তাই বিশ্বাস করি, আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ঝড় তুলতে পুরোপুরিই প্রস্তুত আমি।’

নিজের কৌশল নিয়েও খানিকটা কথা বলেছেন ইমরান জুনিয়র। বলেছেন, ‘সবার আগে আমি একজন ব্যাটসম্যানকে আসলে পরীক্ষা করে নেই। তার শক্তিটা বুঝে নেওয়ার পরই আমি রণকৌশল টিক করি কিভাবে তাকে বল করতে হবে। আর সাফল্য পেতে হলে কিন্তু নিজের বোলিং বৈচিত্র্যের বিষয়টি নিয়ন্ত্রণে থাকতে হয়।’




Leave a Reply

Your email address will not be published.