Search
Sunday 22 May 2022
  • :
  • :

ধানমন্ডিতে নারী ক্রীড়াবিদদের গোসলের দৃশ্য ভিডিও ! (দেখুন ভিডিও)

ধানমন্ডিতে নারী ক্রীড়াবিদদের গোসলের দৃশ্য ভিডিও ! (দেখুন ভিডিও)

স্পোর্টস ডেস্ক : রাজধানীর ধানমন্ডি সুলতানা কামাল ক্রীড়া কমপ্লেক্সে মহিলাদের বাথ রুমের ছাদে বড় বড় ছিদ্র পাওয়া গেছ! সেই ছিদ্র দিয়ে নারী ক্রীড়াবিদদের গোসলের দৃশ্য ভিডিও করার অভিযোগ উঠেছে। মহিলাদের বাথরুমের ছাদের ফুটোর ছবি এখন ফেসবুকে পাওয়া যাচ্ছে। নারী ক্রীড়াবিদদের আশঙ্কা ঐসব বাথরুমে তাদের গোসলের দৃশ্যও ভিডিওবন্দি করা হয়েছে এবং তা ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়া হতে পারে।

এ ঘটনায় ক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ছে নারী ক্রীড়াবিদদের মধ্যে। তাদের বক্তব্য, প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে কীভাবে সুরক্ষিত এই কমপ্লেক্সের মহিলাদের বাথরুমে ছাদে ছিদ্র করা হলো।তাদের অভিযোগ এর সঙ্গে কমপ্লেক্সের লোকেরা জড়িত।

বাথ রুমের ছিদ্র নিয়ে একটি ভিডিও বৃহস্পতিবার ফেসবুকে আপলোড করা হয়েছে। তাসনোভা ফারহিম নামে ওই ফেসবুক পোস্টের ভিডিওতে দেখা যায়, কমপ্লেক্সের তিনটি বাথরুমের ছাদে বড় বড় ছিদ্র।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ক্রীড়াবিদ জানিয়েছেন, গতকাল বুধবার কমপ্লেক্সের  সুইমিং পুলে সাঁতার শেষে বাথরুমে গোসল করতে গিয়ে হঠাৎ উপরে তাকিয়ে সিলিং এ একটা ছিদ্র দেখতে পান এবং কেউ একজন তাকে ফলো করছে বলে নিশ্চিত হলে তিনি চিৎকার দিয়ে ওঠেন এবং সঙ্গে সঙ্গে ঐ লোকটি পালিয়ে যায়।

তিনি জানান, বাথরুমগুলো হচ্ছে সুইমিংপুলের গ্যালারির (বসার সিড়ি) ঠিক নিচে। পরে মহিলাদের জন্য নির্ধারিত তিনটা বাথরুমের ছাদেই ছিদ্র দেখা যায়। ছিদ্রগুলা সাময়িকভাবে আটকানো থাকে এবং এগুলো দিয়ে সহজেই ভেতরে দৃশ্য ধারণ করা সম্ভব। কমপ্লেস্কে একজন বৃদ্ধ দারোয়ান রয়েছে। কিন্তু প্রতিদিন সুইমিংপুলের গেট খোলে আর বন্ধ করে দারোয়ানের ছেলে। তার বয়স ৩০ এর ঘরে। অনেকের অভিযোগ এই ছেলেই এর সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। কারণ ছিদ্রগুলো ড্রিল মেশিন দিয়ে করা। এটা ওই বৃদ্ধের পক্ষে করা সম্ভব নয়। বৃদ্ধ দাড়োয়ান এই কমপ্লেক্সে ৭ বছর ধরে কাজ করছেন। আগে এ রকম হয়নি।

এ বিষয়ে কমপ্লেক্সের অফিসে অভিযোগ দেয়া হলেও কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি বলে অভিযোগ রয়েছে। উল্টো বলা হয়- সুইমিং এর সময় সাড়ে ১২টা পর্যন্ত। এরপর আপনারা থাকেন কেন।

ওই ক্রিড়াবিদ বলেন, অভিযোগ দেয়ার পর এক পর্যায়ে অফিস থেকে বলা হয়েছে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা দেখবেন। ওই বৃদ্ধের ছেলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। বেশ কিছু দিন হলো কোনো কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হয়নি।এ বিষয়ে কথা বলতে ধানমন্ডি মহিলা কমপ্লেক্সের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেও কাউকে পাওয়া যায়নি।

তবে জানতে চাইলে ধানমন্ডি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নূরে আজম মিয়া এ প্রতিবেদককে বলেন, এ বিষয়ে আমাদের কাছে কোনো অভিযোগ আসেনি। ফলে ব্যবস্থা নেয়ারও কোনো সুযোগ নেই।  ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন

সূত্র : ঢাকাটাইমস




Leave a Reply

Your email address will not be published.