রংপুর, ৪ অক্টোবর : রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের কাচু আলুটারী গ্রামে জাপানি নাগরিক হোসি কোনিও খুনের ঘটনায় তিনজনকে আসামি করে একটি হত্যা মামলা করা হয়েছে।

শনিবার মধ্যরাতে কাউনিয়া থানা পুলিশ বাদী হয়ে এ মামলা করে। মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় ৩ জনকে আসামি করা হয়েছে। এ ঘটনায় এ পর্যন্ত ছয়জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম।

এদিকে শনিবার গভীররাতে বাংলাদেশের জাপান দূতাবাসের তদন্ত দলের কর্মকর্তারা রংপুরে এসে পুলিশ সুপারের সঙ্গে রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। তারা রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হিমঘরে রাখা হোসি কুনিওর লাশ দেখেন এবং আলামত সংগ্রহ করেন। তবে এ ব্যাপারে দূতাবাসের কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট পুলিশ সাংবাদিকদের সঙ্গে কোনো কথা বলতে রাজি হননি।

পুলিশ সুপারের সঙ্গে জাপানি দূতাবাস কর্মকর্তাদের রুদ্ধদ্বার বৈঠক আর হাসপাতালের হিমঘরে লাশ পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার বিষয়ে পুলিশের কোনো কর্মকর্তাই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে রাজি হননি।

এদিকে রাজশাহী থেকে আসা সিআইডি পুলিশের একটি দল গভীর রাত পর্যন্ত ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। দলটি জাপানি দূতাবাসের কর্মকর্তাদের সঙ্গে হাসপাতালের হিমঘরে গেলেও তারা তদন্তের অগ্রগতি ও অন্যান্য বিষয়ে কোনো কথাই বলেননি।

এর আগে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় রংপুরের কাউনিয়া উপজেলার সারাই ইউনিয়নের কাচু আলুটারী গ্রামে জাপানি নাগরিক হোসি কোনিওকে (৬৫) গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। এর আগে গত সোমবার সন্ধ্যায় রাজধানীর গুলশানে ইতালির নাগরিক সিজারি তাভেল্লাকে খুন করে দুর্বৃত্তরা। তাভেল্লার খুনিদের মতো রংপুরেও হোসি কোনিওকে হত্যা করতে দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেলে আসে। পুলিশ এ ঘটনায় পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে।

এদিকে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) রংপুরে জাপানি নাগরিক হোসি কুনিওকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে বলে রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এমন সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *