Search
Wednesday 18 May 2022
  • :
  • :

কামরুলসহ ১১ আসামি আদালতে

কামরুলসহ ১১ আসামি আদালতে

সিলেট : সিলেটে চাঞ্চল্যকর শিশু সামিউল আলম রাজন হত্যা মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের জন্য প্রধান আসামি কামরুল ইসলামসহ ১১ জনকে আদালতে নেওয়া হয়েছে।

রবিবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতে তাদের আনা হয়।

আজই এই মামলায় সাক্ষ্যগ্রহণের শেষ দিন। আসামিদের উপস্থিতিতে এদিন সাক্ষ্য দিবেন- মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও মহানগর গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) সুরঞ্জিত তালুকদারসহ আরো দুজন।

বাকি আসামিরা হলেন- কামরুলের ভাই গ্রেপ্তার মুহিদ আলম, আলী হায়দার, তাজ উদ্দিন আহমদ বাদল, ময়না চৌকিদার, রুহুল আমিন, দুলাল আহমদ, নগরীর জালালাবাদ থানার পূর্ব জাঙ্গাইল গ্রামের নিজাম উদ্দিনের ছেলে ভিডিওচিত্র ধারণকারী নুর মিয়া, ফিরোজ মিয়া, আছমত উল্লাহ ও আয়াজ আলী।

রাজন হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ আজ শেষ হলে চলতি মাসেই রায় ঘোষণা সম্ভব বলে জানিয়েছেন সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালতের পিপি অ্যাডভোকেট মফুর আলী।

তিনি বলেন, ‘চলতি মাসের মধ্যেই রাজন হত্যা মামলার রায় ঘোষণার ব্যাপারে আমরা আশাবাদী।’

এদিকে, এই হত্যা মামলার পলাতক দুই আসামি কামরুলের ভাই শামীম আহমদ ও আইসক্রিম কারখানার কর্মচারী জাকির ওরফে পাভেল ওরফে রাজুকে ধরতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

বাদীপক্ষের আইনজীবী ও সিলেট জেলা বারের সাবেক পিপি অ্যাডভোকেট এমাদ উল্যাহ শহীদুল ইসলাম শাহীন জানান, রাজন হত্যা মামলার চার্জশিটভুক্ত আসামি ১৩ জন। এর মধ্যে কামরুলসহ এখন কারাগারে ১১ জন আটক রয়েছেন।

তিনি বলেন, মোট সাক্ষী ৩৮ জন। এর মধ্যে ইতোপূর্বে আদালতে ৩৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। আজ বাকিদের সাক্ষ্য গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, গত ৮ জুলাই সিলেট নগরীর কুমারগাঁওয়ে শিশু সামিউল আলম রাজনকে ভ্যান চুরির অভিযোগে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে নির্মমভাবে নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়।

নির্যাতনের দৃশ্য ভিডিও করেন হত্যাকারীদের সহযোগীরা। তারা নিজেরাই সেই ভিডিও ফেসবুকে আপলোড করেন। সেটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ও গণমাধ্যমগুলো বিষয়টি নিয়ে সরব হলে দেশব্যাপী তোলপাড় শুরু হয়।

এর মধ্যে মুহিদের ভাই সৌদি প্রবাসী কামরুলের দেশ ত্যাগে নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তিনি সৌদি পালিয়ে যান। কিন্তু ১৩ জুলাই সৌদি প্রবাসীরা তাকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। আটকের ৬৪ দিন পর কামরুলকে গত বৃহস্পতিবার ঢাকা আনা হয়।




Leave a Reply

Your email address will not be published.