Search
Monday 10 August 2020
  • :
  • :

করোনা প্রতিরোধে ফাইজারের টিকাও নিরাপদ

করোনা প্রতিরোধে ফাইজারের টিকাও নিরাপদ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, ২১ জুলাই : করোনাভাইরাস প্রতিরোধে ব্রিটেনের অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের আবিষ্কৃত টিকার পাশাপাশি যুক্তরাষ্ট্রের ওষুধ কোম্পানি ফাইজার ও জার্মান জৈবপ্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান বায়ো এন টেকের পক্ষ থেকেও তাদের টিকা নিরাপদ বলে দাবি করা হয়েছে।

সোমবার (২০ জুলাই) ফাইজারের পক্ষ থেকে তাদের পরীক্ষামূলক টিকার আরও বেশকিছু তথ্য প্রকাশ করা হয়।

ফাইজারের পক্ষ বলা হয়, তাদের টিকা পরীক্ষায় রোগীর দেহে নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে এবং প্রতিরোধী প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছে। এ ছাড়া করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়তে উচ্চমাত্রার টি-সেল প্রতিক্রিয়াও দেখিয়েছে ফাইজারের টিকা।

টাইম অনলাইনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ফাইজারের সিইও অ্যালবার্ট বোরলা বলেছেন, তাঁরা আশা করছেন, আগামী অক্টোবর মাস নাগাদ তাঁদের ভ্যাকসিনের জন্য ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের কাছ থেকে অনুমোদন পেয়ে যাবেন। সেপ্টেম্বরে তাঁরা ভ্যাকসিনের কার্যকারিতার ফল জেনে যাবেন।

এদিকে সিএনবিসির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ফাইজার ও বায়ো এন টেকের টিকা ইতিবাচক ফল দেখানোর ঘোষণা আসার তাদের শেয়ারের দাম বেড়ে গেছে। বায়ো এন টেকের শেয়ারের দাম বেড়েছে ১২ শতাংশ আর ফাইজারের শেয়ারের দাম বেড়েছে ৩ দশমিক ৬ শতাংশ।

এর আগে ১ জুলাই করোনা প্রতিরোধে পরীক্ষামূলক ভ্যাকসিনের ইতিবাচক ফল পাওয়ার কথা জানায় ফাইজার। তারা দাবি করেছে, এটি স্বাস্থ্যবান মানুষের মধ্যে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে। এটি সার্স-কোভ-২ ভাইরাসের বিরুদ্ধে অ্যান্টিবডি উৎপন্ন করেছে। কোভিড-১৯ রোগ থেকে সেরে ওঠা ব্যক্তির শরীরে যে নিউট্রিলাইজিং অ্যান্টিবডি তৈরি হয়, এর চেয়ে ১ দশমিক ৮ থেকে ২ দশমিক ৮ গুণ বেশি।

বিশ্বজুড়ে প্রায় ১৫০টির বেশি টিকা তৈরি ও পরীক্ষার কাজ চলছে। বর্তমানে ২৩টি টিকা মানবদেহে পরীক্ষামূলকভাবে প্রয়োগ করা হচ্ছে। তবে বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন, নিরাপদ ও কার্যকর টিকা তৈরিতে ১২ থেকে ১৮ মাস সময় লাগে।