Search
Friday 6 December 2019
  • :
  • :

ওমানের কাছে ৪-১ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ

ওমানের কাছে ৪-১ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ

স্পোর্টস ডেস্ক, ১৫ নভেম্বর : প্রথম ৪৫ মিনিট ওমানকে রুখে দিয়ে ড্রয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েছিল বাংলাদেশ। কিন্তু বিরতির পর চার গোল হজম করে ম্যাচ থেকে ছিটকে পড়ে লাল-সবুজের দলটি। ওমানের সঙ্গে আর পেরে ওঠেনি জেমি ডের দল।

বৃহস্পতিবার মাসকটের সুলতান কাবুস স্পোর্টস কমপ্লেক্সে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে ওমানের কাছে ৪-১ গোলে হেরেছে বাংলাদেশ। অতিথিদের হয়ে একটি গোল করেন বিপলু আহমেদ।

‘রক্ষণভাগ অটুট রেখে কাউন্টার অ্যাটাক করা’- পুরোনো এই কৌশলেই দলকে সাজান কোচ জেমি ডে। র‌্যাংকিংয়ে ১০০ ধাপ ওপরে থাকা ওমানের বিপক্ষে রক্ষণাত্মক খেলাটাই যে শ্রেয়। শুরুর দিকে ওমান ছিল আক্রমণাত্মক। তবে তা প্রতিহত করতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি বাংলাদেশকে। স্বাগতিকরা আক্রমণাত্মক খেললেও ম্যাচে গোল হওয়ার মতো প্রথম সুযোগটি পায় বাংলাদেশ। ১১ মিনিটে বক্সের বাইরে থেকে জামাল ভূঁইয়ার ডান পায়ের আচমকা শট ওমান গোলরক্ষক আলি আল হাবসি লাফিয়ে ওঠে প্রতিহত করেন। এই গোল হলে ম্যাচের চেহারাটাই বদলে যেত।

শুরুতে গোল না হওয়ার যে চেষ্টা, সেটা ভালোভাবেই কাজে লাগান ডিফেন্ডাররা। তবে প্রথমার্ধে নজর কেড়েছেন গোলরক্ষক আশরাফুল ইসলাম রানা। ম্যাচের ৩০ মিনিটে তার বীরত্বে বেঁচে যায় বাংলাদেশ। সতীর্থের কাছ থেকে বল পেয়ে বক্সের বাইরে থেকে মহসিন আল খালদির বাঁ পায়ের বুলেট গতির শট দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন রানা। শুধু এই শটই নয়, প্রথমার্ধে পোস্টের নিচে দেয়াল হয়ে ছিলেন তিনি। রানার সঙ্গে ইয়াসিন খান-রহমত মিয়ারাও ছিলেন দুর্দান্ত। প্রথমার্ধে ওমানকে আটকে রাখে বাংলাদেশ।

ডিফেন্ডারদের অসতর্কতার কারণে বিরতির পর শুরুতেই গোল হজম করে বাংলাদেশ। ৪৮ মিনিটে সতীর্থের কাছ থেকে বল পান মহসিন। কিন্তু তাকে কেউই পাহারায় রাখেননি। বক্সের ভেতর থেকে বাঁ পায়ের নিখুঁত শটে গোলরক্ষক রানাকে পরাস্ত করেন এ মিডফিল্ডার।

গোল পরিশোধের কয়েকটি সুযোগ পেলেও তা কাজে লাগাতে পারেনি লাল-সবুজের দলটি। উল্টো ম্যাচের ৬৮ মিনিটে আল মান্দার গোল করলে ম্যাচ থেকে ছিটকে যায় বাংলাদেশ। ৭৮ মিনিটে তৃতীয় গোল হজম করে বাংলাদেশ। গোল করেন আরশাদ। দুই মিনিট পর একটি গোল পরিশোধ করেন বিপলু আহমেদ। তবে তা ম্যাচে ফেরার জন্য যথেষ্ট ছিল না। ম্যাচের যোগ করা সময়ে আরমান সাইদ গোল করলে বড় ব্যবধানে হার নিশ্চিত হয় বাংলাদেশের।