Search
Friday 16 November 2018
  • :
  • :

আরও একদফা দাম কমল জ্বালানির

আরও একদফা দাম কমল জ্বালানির

নয়াদিল্লি, ৮ নভেম্বর : আম আদমিকে স্বস্তি দিয়ে আবারও কমল জ্বালানির দাম৷ বৃহস্পতিবার সকালেই তেল কোম্পানিগুলির ঘোষণা পেট্রলে লিটার পিছু দাম কমেছে ২০-২১ পয়সা৷ ডিজেলের কমেছে ১৮ থেকে ১৯ পয়সা৷ রাজধানী দিল্লিতে এদিন পেট্রলের দাম কমেছে লিটার পিছু ২১ পয়সা৷ নতুন দাম হয়েছে ৭৮.২১ পয়সা৷ ডিজেলে লিটার পিছু ১৮ পয়সা কমে হয়েছে ৭২.৮৯ পয়সা৷

বাণিজ্যনগরী মুম্বইয়ে একটা সময় পেট্রল প্রায় ১০০ র দৌড়গোঁড়ায় পৌঁছে যায়৷ কিন্তু সেখান থেকে কমতে কমতে পেট্রল এখন ৮২র ঘর ছুঁইছুঁই৷ বৃহস্পতিবারের দাম বলছে মুম্বইতে পেট্রলের দাম কমেছে লিটার পিছু ২০ পয়সা৷ ফলে দাম কমে দাঁড়িয়েছে ৮৩.৭২ পয়সা৷ আর ডিজেলের দাম কমেছে ১৯ পয়সা৷ নয়া দাম হয়েছে ৭৬.৩৮ পয়সা৷

টানা দু’সপ্তাহ নাগাড়ে দাম কমছে জ্বালানির৷ পুজোর পর থেকে পেট্রলের দাম কমেছে লিটারে সাড়ে চার টাকা৷ ডিজেলের এই কমার হার কিছুটা কম৷ ডিজেলে গত দু’সপ্তাহে লিটারে দাম কমেছে দু’টাকা টাকা৷ পেট্রপণ্যে’র দাম কমার এই প্রবণতা আম আদমির কাছে ‘আচ্ছে দিনে’র ইঙ্গিত? মূলবৃদ্ধির বাজারে প্রশ্ন মধ্যবিত্তের৷

গত জুন মাস থেকে নাগাড়ে বাড়ছিল জ্বালানির দাম৷ কবে তা সেঞ্চুরি হাঁকাবে তা নিয়ে কৌতুহল ছিল দেশবাসীর৷ পেট্রপণ্যের দাম বাড়ায় চড়া হারে বাড়ছিল নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দামও৷ নাভিশ্বাস অবস্থা দেশজুড়ে৷ এই পরিস্থিতির জন্য বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম বৃদ্ধি ও আন্তর্জাতিক বেশ কয়েকটি বিষয়কে তুলে ধরা হয় কেন্দ্রের তরফে৷

তবে জ্বালানির মূল্য বৃদ্ধিকে হাতিয়ার করে বিরোধীদের নিশানায় ছিল মোদী সরকার৷ চাপের মুখে পদক্ষেপ করে কেন্দ্র৷ পেট্রল ও ডিডেজেলের লিটার প্রতি শুল্ক দেড় টাকা করে কমানোর কথা ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ রাষ্ট্রায়ত্ত্ব তেল সংস্থাগুলিও এক টাকা ছাড়ের ঘোষণা করে৷

কিন্তু জ্বালানির দাম বৃদ্ধির হারের তুলনায় সে ছাড় ছিল নেহাতই সামান্য৷ ফলে কষ্টের লাঘব হয়নি সাধারণ মানুষের৷ বিরোধীদের খোঁচা ছিল পাঁচ রাজ্যে ভোটের আগে এই ছাড় লোক দেখানো৷

এরপর অবশ্য অক্টোবরের শেষের দিক থেকে দাম কমতে থাকে পেট্রেপণ্যের৷ কেন্দ্র জানায়, আন্তর্জাতির বাজারে দাম কমা ও ইরানের থেকে ভারত তেল কেনার বিষয়ে মার্কিন ছাড়পত্রেই দাম কমছে জ্বালানির৷ তবে যুক্তি মানতে নারাজ বিরোধী শিবির৷ পুরো বিষয়টিকেই পাঁচ রাজ্যে ভোটের আগে মোদী সরকারের কৌশলী পদক্ষেপ হিসাবেই দেখছেন তারা৷ রাজনীতির অলিন্দে না ঢুকে মধ্যবিত্তের কৌতুল, পেট্রল, ডিজেলের এই দাম কমার হার বাজায় থাকবে তো? কমবে তো জিনিসের দাম? সূত্র: কলকাতা ২৪