Search
Tuesday 27 October 2020
  • :
  • :

অশ্রুসিক্ত বিদায় উমর গুলের

অশ্রুসিক্ত বিদায় উমর গুলের

স্পোর্টস ডেস্ক, ১৭ অক্টোবর : ম্যাচ শেষ হবার অপেক্ষা আর দীর্ঘ ক্যারিয়ারের ইতি টানার অপেক্ষা উমর গুলের। ম্যাচ শেষে একাই পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের দেয়া সম্মানী ক্রেস্ট নিয়ে বিদায়ী ভাষণ দিতে গিয়ে নিজেকে ধরে রাখতে পারেননি, আড়াল করতে পারেননি অশ্রুসিক্ত চোখ।

ক্রিকেটেই তার ধ্যানজ্ঞান। দীর্ঘ ২০ বছরের ক্যারিয়ারের ইতি টানা। বিদায় তো একদিন বলাই লাগবে তবে উমর গুলের সেই দিনটা ১৬ অক্টোবর ২০২০।

এদিন সবধরনের ক্রিকেটকে বিদায় জানাতে গিয়ে কেঁদে ওঠেন। পাকিস্তানে চলছে ন্যাশনাল টি-টোয়েন্টি কাপ। এই টুর্নামেন্টে বেলুচিস্তানের হয়ে খেলছেন গুল। শুক্রবার রাতে সাউদার্ন পাঞ্জাবের বিপক্ষে হেরে যায় বেলুচিস্তান। এই হারে টুর্নামেন্ট থেকে ছিটকে যায় বেলুচিস্তান।

২০০১/২ মৌসুমে ঘরোয়া ক্রিকেটে অভিষেক হয়, ২০০৩ সালে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচ দিয়ে অভিষেক হয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে। একই বছর ওয়ানডেতে অভিষেক হয় জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে।

সবশেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন প্রায় চার বছর আগে ২০১৬ সালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অনিয়মিত হয়ে পড়লেও ঘরোয়া ক্রিকেটে ছিলেন নিয়মিত মুখ।

পাকিস্তানি জার্সিতে ৪৭ টেস্টে ১৬৩, ১৩০ ওয়ানডেতে ১৬৯ ও ৬০ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৮৫টি উইকেট শিকার করেন গুল। এছাড়া ১২৫টি প্রথম শ্রেণীর ৪৭৯, ২১৩ লিস্ট এ ম্যাচে ২৮৬ ও ১৬৭ ঘরোয়া টি-টোয়েন্টিতে ২২২ উইকেট শিকার করেন তিনি। সবমিলে স্বীকৃত ক্রিকেটে তার উইকেট সংখ্যা ৯৮৭।

ইয়র্কারের জন্য বিখ্যাত উমর গুল ২০০৯ সালে পাকিস্তানের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ জয়েও রেখেছিলেন দারুণ ভূমিকা। এর আগে ২০০৭ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রানার্স-আপ হলেও ওই বিশ্বকাপেও সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি ছিলেন তিনি।

বিদায় বেলায় উমর গুল বলেন, ‘দুই দশক ধরে আমার ক্লাব, শহর, প্রদেশ ও দেশকে প্রতিনিধিত্ব করতে পারা ছিল আমার জন্য অনেক বড় সম্মানের। পুরোপুরি ক্রিকেটকে উপভোগ করেছি আমি। এই কঠোর পরিশ্রম, নিবেদন ও প্রতিজ্ঞার মূল্য কীভাবে দিতে হয় এই খেলা আমাকে শিখিয়েছে। এই ভ্রমণে অসংখ্য মানুষকে পাশে পেয়েছি, যারা সহায়তা ও সমর্থন করেছেন। তাদের সবাইকে, আমার সব সতীর্থের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই।’

অবসরের সময়টা দিতে চান পরিবারকে। তবে একদমই যে ক্রিকেট থেকে দূরে না থাকার কথাই জানান।

‘আমাকে সমর্থন দেওয়ায় ভক্তদের ধন্যবাদ দিতে চাই। ওরাই আমার ক্যারিয়ারের অনেক বড় একটা অংশ। পরিবারও এর ব্যতিক্রম নয়। এখন কাছের মানুষদের সাথে সময় কাটাতে চাই। তবে ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা অনেক কষ্টের। পাকিস্তান ক্রিকেট আমাকে অনেক কিছু দিয়েছে, আমিও সেসব ফিরিয়ে দিতে চাই।’