Search
Tuesday 24 May 2022
  • :
  • :

অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করেছে বাংলাদেশ: পিটিআই

অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করেছে বাংলাদেশ: পিটিআই

ঢাকা : ভারতের রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে, উলফা নেতা অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করেছে বাংলাদেশ। আজ বুধবার ভোরে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের একটি স্থলবন্দর দিয়ে অনুপ চেটিয়াকে বিএসএফের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

উচ্চ পর্যায়ের এক বিশ্বস্ত সূত্রের বরাত দিয়ে পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ব্যক্তিগত ও এনএসএ’র কর্মকর্তা অজিত দোভালের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধানে অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

তবে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে এখনও কিছু জানা যায়নি।

জিনিউজের খবরে বলা হয়, আজ সকালে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে দুজন সঙ্গীসহ অনুপ চেটিয়াকে ভারতের নিরাপত্তা সংস্থার কাছে হস্তান্তর করে বাংলাদেশ।

ভারতের পররাষ্ট্র দপ্তরের শীর্ষ কর্মকর্তারাও এ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে এ বিষয়ে ‍খুব বেশি তথ্য পাওয়া যায়নি।

এই উলফা নেতাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য দিল্লি নেওয়া হবে বলে ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন।

পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, অনুপ চেটিয়াকে হস্তান্তরের ঘটনা এমন সময় হল, যখন গত অক্টোবরে প্রায় দুই দশক ধরে ফেরারি ভারতের অপরাধ জগতের অন্যতম নিয়ন্ত্রক ছোটা রাজনকে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

দীর্ঘদিন ধরে বাংলাদেশের কারাগারে বন্দী ছিলেন উত্তর-পূর্ব ভারতের স্বাধীনতাকামী সংগঠন ইউনাইটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসাম (উলফা) এর সাধারণ সম্পাদক অনুপ চেটিয়া।

১৯৯৭ সালের ২১ ডিসেম্বর ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার একটি বাসা থেকে অনুপ চেটিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।  এরপর তার বিরুদ্ধে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অবস্থান এবং অবৈধভাবে বিদেশি মুদ্রা ও একটি স্যাটেলাইট ফোন রাখার অভিযোগে তিনটি মামলা হয়। পরে তিনটি মামলায় তাকে যথাক্রমে তিন, চার ও সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন বাংলাদেশের আদালত। ২০০৭ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি তার সাজার মেয়াদ শেষ হয়। অতীতে বিভিন্ন সময়ে অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করার জন্য ওই দেশের পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকারের ওপর চাপ ছিল। কিন্তু বাংলাদেশে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে ২০০৩ সালের ২৩ আগস্ট হাইকোর্টে আবেদন করেন অনুপ চেটিয়া।

২০১৩ সালের দিকে তিনি নিজ দেশে ফিরে যাওয়ার আগ্রহ পোষণ করেন। এ আগ্রহের কথা জানিয়ে কারা কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে তিনি বাংলাদেশ সরকারের কাছে চিঠি দেন। চিঠিতে তিনি ইতিপূর্বে বাংলাদেশে রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য করা আবেদন প্রত্যাহারের কথাও বলেছেন বলে কারাগারসংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছিল।

অনুপ চেটিয়া চিঠিতে লিখেছেন, বাংলাদেশের কারাগারে থাকা তার দুই সহচর লক্ষ্মীপ্রসাদ গোস্বামী ও বাবুল শর্মাকে নিয়ে তিনি নিজ দেশে ফিরতে চান।

ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের স্বাধীনতার লক্ষ্যে ১৯৭৯ সালে গঠিত হয় উলফা। এরপর দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে সশস্ত্র তৎপরতা চালায় সংগঠনটি।




Leave a Reply

Your email address will not be published.